জমির খতিয়ান, নকশা, দলিল কোথায় এবং কিভাবে পাবেন? (GK of Land)

সুপ্রিয় পাঠক! আপনি যদি জমি-জমা সংক্রান্ত প্রাথমিক ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে জানতে চান। তাহলে অনুগ্রহ করে এই আর্টিকেলটি ফলো করতে পারেন। এখানে আমি জমির খতিয়ান, নকশা, দলিল কোথায় এবং কিভাবে পাবেন এসকল বিষয়বস্তু আলোচনা করেছি।

জমির উল্লেখযোগ্য ডকুমেন্টগুলো কি কি?

➥১. পর্চা বা খতিয়ান (Leaflet or ledger)।
➥২. দলিল (Documents)।
➥৩. ম্যাপ বা নকশা (Map or design)।

এই নথিগুলি বা ডকুমেন্টগুলো ছাড়া, আপনার জমি বিক্রয়, স্থানান্তর বা ব্যাঙ্ক লোন নিয়ে সমস্যায় পড়তে পারেন৷
তাই জমির খতিয়ান, দলিলসহ যাবতীয় দলিল সংগ্রহের জন্য বিভিন্ন সরকারি দপ্তর রয়েছে, যারা জমি সংক্রান্ত নথিপত্র রাখে। আর এসকল ডকুমেন্টস সতর্কতার সহিত সংগ্রহ এবং ব্যবস্থাপনা করা আপনার একান্ত কাজ।

জমির এই গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টগুলো কোথায় এবং কিভাবে পাবেন?

আপনি কোথায়, কিভাবে এবং কত সময়ের মধ্যে জমির খতিয়ান ( পর্চা ), দলিল এবং নকশা সংগ্রহ করবেন তার বিস্তারিত আলোচনা নীচে দেওয়া হল।

প্রথমত, জমির খতিয়ান সম্পর্কে আলোচনা করা যাকঃ

জমির খতিয়ান ( পর্চা ) কোথায় পাবেন?

আপনি জমির খতিয়ান বা পর্চা সাধারণত চারটি অফিসের যেকোন একটিতে গেলেই পাবেন পাবেন। এগুলো হলোঃ-

  • 1/ ইউনিয়ন ভূমি অফিস।
  • 2/ উপজেলা ভূমি অফিস।
  • 3/ জেলা ডিসি অফিস।
  • 4/ সেটেলমেন্ট অফিস।

ইউনিয়ন ভূমি অফিস বা তহসিল অফিস

যদিও ইউনিয়ন ভূমি অফিসের একটি খাতা বা প্যামফলেট আছে, আপনি এই অফিস থেকে খাতার একটি কপি নিতে পারবেন না। আপনি শুধুমাত্র ইউনিয়ন ভূমি অফিস থেকে একটি খসড়া খাতা (খতিয়ানের কপি) পেতে পারেন যার কোন আইনি মূল্য নেই। যাইহোক, এই অফিসটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ আপনি যদি আপনার জমির খাতা নম্বর না জানেন তবে আপনি এই অফিস থেকে জানতে পারেন। এই অফিসে জমির খাজনা বা ভূমি উন্নয়ন কর দিতে হয়।

উপজেলা ভূমি অফিস

যদিও উপজেলা ভূমি অফিসের প্রধান কাজ রেজিস্ট্রি বা খারিজ বা মিউটেশন করা, তবু খসড়া খতিয়ান বহি তৈরি করা সম্ভব। আপনি এই অফিস থেকে প্রত্যয়িত লিফলেট বা আদালতের কাগজপত্র ( কোর্ট পর্চা ) নিতে পারবেন না।

জেলা ডিসি অফিস

আপনি এই অফিস থেকে লিফলেট বা লেজারের একটি প্রত্যয়িত অনুলিপি (খতিয়ানের সত্যায়িত কপি) সংরক্ষণ করতে পারেন। এই অফিস বইটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই অফিস বই সর্বত্র গুরুত্বপূর্ণ.

সেটেলমেন্ট অফিস

সেটেলমেন্ট অফিস থেকে আপনি শুধুমাত্র নতুন জমির রেকর্ড , জরিপের খতিয়ান ( পর্চা ) সংগ্রহ করতে পারবেন। এছাড়াও এর পাশাপাশি আপনি চাইলে- নতুন রেকর্ড এর ম্যাপ”ও কালেক্ট করতে পারবেন।

এখন চলুন, জমির খতিয়ান, দলিল এবং নকশা, এবং যাবতীয় ডকুমেন্টস এর ফি খরচ হিসাবসহ আরো কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে জানা যাক। যেমনঃ-

জমির পর্চা (খতিয়ান) তুলতে কত টাকা খরচ হবে?

প্রকৃতপক্ষে- সি এস, এস এ, আর এস, এর জন্য [ জমির পর্চা (খতিয়ান) ] তুলতে কত টাকা দিতে হবে তা নির্ভর করে ঐ স্থানের সিন্ডিকেটের উপর। তবে সাধারণত সিটি কর্পোরেশনের আওতাভুক্ত জমির জরিপের জন্য সর্বনিম্ন 100 টাকা খরচ হবে।

আপনার জমির জন্য বায়া দলিল এবং মূল দলিল কোথায় থেকে সংগ্রহ করবেন?

বায়া দলিল বা মূল দলিলের জন্য আপনি উপজেলা সাব-রেজিষ্ট্রি অফিসে যেতে পারেন। অথবা, জেলা রেজিষ্ট্রি ভূমি অফিস (সদর রেকর্ড রুম) থেকেও দলিলাদি সংগ্রহ করতে পারেন।

উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রি অফিস এর কাজ কি?

যেখানে নতুন দলিল রেজিস্ট্রেশন করা হয় এই অফিস হতে নতুন দলিলের নকল ও মূল দলিল পাওয়া যায়। কিন্তু পুরাতন দলিল বা বায়া দলিল এই অফিসে পাওয়া যায় না।

উপজেলা সাব-রেজিষ্ট্রি অফিস থেকে নতুন ( দলিল ) নথির নকল এবং আসল নথি (দলিলাদি) পাওয়া যায়। সুতরাং এধরণের অফিসে নতুন নথিপত্র বা দলিলসমূহ নিবন্ধিত হয়। কিন্তু পুরনো দলিল বা বেয়া দলিল এ অফিসে, সাধারণত পাওয়া যায় না।

জেলা রেজিস্ট্রি অফিসের কাজ কি?

জেলা রেজিষ্ট্রি অফিস (সদর রেকর্ড রুম) থেকে আপনি নতুন বা পুরাতন দলিলের প্রত্যয়িত কপিসমূহ সংগ্রহ করতে পারবেন।

জমির দলিল তুলতে কত টাকা খরচ করতে হবে?

আসলে জমির দলিলের খরচসমূহ নির্দিষ্ট করে ষ্পষ্টভাবে বলা সম্ভব হচ্ছে না। কারণ, সরকারি খরচ কম হলেও নকলের খরচ নির্ভর করে স্থানীয় সিন্ডিকেটের ওপর। তাই আমার ব্যক্তিগত পরামর্শ হলোঃ আপনি স্থানীয় উল্লেখ্যযোগ্য ব্যক্তি বর্গের সাহায্য নিয়ে- জমির দলিল সংক্রান্ত ঝামেলাগুলোর সমাধান করবেন।

জমির মৌজার মানচিত্র বা নকশা কোথায় পাবেন?

সাধারণত: জেলা ডিসি অফিস কিংবা ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তর (DLR) অফিস, ঢাকা থেকে জমির প্রকৃত মৌজার মানচিত্র বা নকশা সংগ্রহ করতে পারবেন। জমির ম্যাপ বা নকশার জন্য এই দুইটি অফিসের যেকোন একটির সাথে যোগাযোগ করলেই হবে, আশা করি।

সফল উদ্যোক্তা হওয়ার উপায়

জেলা ডিসি অফিসের খরচাদি

এই অফিস থেকে CS, SA, RS, BS যেকোনো মৌজার ম্যাপ সংগ্রহ করা যাবে। এজন্য-
আপনাকে যা সংগ্রহ করতে হবে তা হল আবেদনপত্র + একটি কোর্ট ফি। 20 এবং রুপি নগদ জমা বা DCR জন্য 500. তার মানে আপনি 530 টাকায় একটি মৌজা ম্যাপ পেতে পারেন।

জমির খতিয়ান, নকশা, দলিল কোথায় এবং কিভাবে পাবেন? (GK of Land)
জমির খতিয়ান, নকশা, দলিল কোথায় এবং কিভাবে পাবেন? (GK of Land)

ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের খরচাদি

ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তর, (তেজগাঁও সাতরাস্তার মোড়), ঢাকা থেকেও আপনি জমির ম্যাপ বা নকশা সংগ্রহ করতে পারবেন। এজন্য-
বাংলাদেশের যে কোন মৌজার মানচিত্র, CS, SA, RS, BS, জেলার মানচিত্র, বাংলাদেশের মানচিত্র ওই অফিস থেকে তৈরি করা যাবে।
এই অফিস ম্যাপের গ্রহণযোগ্যতা এবং আরও অনেক কিছু। বাংলাদেশের যেকোনো মানচিত্র এই অফিসে পাওয়া যায়। আবেদনপত্র ম্যাপিংয়ের জন্য খরচ + কোর্ট ফি + ডিসিআর মোট = 550 / = মাত্র টাকা।

জমির নকশা বা ম্যাপ তুলতে কতদিন সময় লাগতে পারে?

সাধারণত আপনি যেদিন, জমির নকশা পাবার জন্য আবেদন করবেন। তার পাঁচ থেকে আট কার্যদীবসের মধ্যে জমির ম্যাপ সংগ্রহ করা সম্ভব। এজন্য আপনাকেই বিষয়টির প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে। এবং সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বর্গের সাথে যোগাযোগ রাখতে হবে।

Leave a Comment