লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায়? সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান তালিকা ২০২২

লাইব্রেরিয়ান কাকে বলে? ২০২২ সালের কোর্স বই তালিকা, লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায়? বাংলাদেশ এবং ভারতের বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের তালিকা এবং ভর্তি হওয়ার দিক-নির্দেশনাসহ প্রয়োজনীয় তথ্যসম্ভার সমৃদ্ধ সম্পূর্ণ আর্টিকেল পড়ুন…

লাইব্রেরিয়ান কোর্স

লাইব্রেরিয়ান কোর্স কমপ্লিট করার পর আপনি, বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি, আধাসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে লাইব্রেরিয়ান পদে বিশেষ সুবিধাসহ চাকরি করতে পারবেন।

লাইব্রেরিয়ান কোর্স করার পর আনি আকর্ষনীয় বেতনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে জব করতে পারেন। একটি লাইব্রেরি, বেশিরভাগ মানুষের মনে, একটি অবস্থান যেখানে বই সংগ্রহ করা হয় এবং রক্ষণাবেক্ষণ করা হয়।

  • বলা হয়ে থাকে! প্রতিটি কলেজ ও প্রতিষ্ঠানের লাইব্রেরি হচ্ছে শিক্ষার বিশেষ কেন্দ্রস্থল।

লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায়? সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ২০২২ তালিকাসহ প্রয়োজনীয় ইনফরমেশন জেনে নিন। আরও বিভিন্ন বিষয়ে বিস্তারিত তথ্যসমৃদ্ধ আলোচনা করার প্রয়াশ করেছি। পোষ্টটি সম্পূর্ণ পড়ার পর, যদি কোন প্রশ্ন থাকে – তাহলে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে লিখবেন।

একনজরে লাইব্রেরিয়ান বা গ্রন্থাগারিক

  • পদবী: লাইব্রেরিয়ান
  • পেশাভিত্তিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ: গবেষণা ভিত্তিক সরকারি, বেসরকারি বা আধাসরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহ।
  • পেশার ধরণঃ অধিকাংশক্ষেত্রে ফুল টাইম। তবে, কিছু কিছু আঞ্চলিক পাঠাগারে পার্ট-টাইম চুক্তিযোগ্য (লাইব্রেরিয়ান পদে পার্ট টাইম জব এর জন্য বেসরকারি গবেষণামূলক অসংখ্য প্রতিষ্ঠান রয়েছে। )
  • পেশার ধরণ: এন্ট্রি লেভেল বা মিড লেভেল।
  • নির্দিষ্ঠ কাজের অভিজ্ঞতা: সাধারণত এন্ট্রি লেভেলে কাজ করার জন্য ক্ষেত্রবিশেষ শূন্য – দুইবছর (০ -২ বছর) কার্য অভিজ্ঞতার প্রয়োজন হতে পারে।
  • মাসিক গড় বেতন: অভিজ্ঞতা সাপেক্ষে বিশ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা। (নূন্যতম ২০,০০০ – ৫০,০০০ টাকা)।
  • প্রয়োজনীয় অন্যন্য দক্ষতা: কম্পিউটার অফিস অ্যাপ্লিকেশন, তথ্য সংগ্রহ ক্ষমতার জ্ঞান, কোন বিষয়ে বিবরণ বিশ্লেষণ দেওয়ার মত জ্ঞান। এবং রেফারেন্সের উপর উপযুক্ত ধারণা থাকা আবশ্যক।

লাইব্রেরিয়ান কাকে বলে

লাইব্রেরিয়ান কাকে বলে? উত্তরঃ লাইব্রেরিয়ান এমন ব্যক্তিকে বলা হয়, যিনি পেশাগতভাবে একটি লাইব্রেরিতে বা গ্রন্থাগারে নিয়মিত কাজ করেন। এবং গ্রাহকদেরকে প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করে সহায়তা করেন। তার প্রদান দায়িত্ব হলো: বই সংগ্রহ, সংরক্ষণ, এবং পাঠকদেরকে বই খুজে পেতে সাহায্য করা। এবং সামাজিক অনুষ্ঠান বা প্রযুক্তিগত প্রোগ্রামিং বা ব্যবহারকারীদের তথ্য (পারসোন ইনফরমেশন) সাক্ষরতার নির্দেশনা প্রদান করা।

প্রচলিত পাঠাগার বা গ্রন্থাগারের ধরণ, ধারা ইত্যাদি আগের তুলনায় অনেক পরিবর্তনীয় এবং সংশোধিত হয়েছে। বিশেষত: বিগত শতাব্দীতে বিভিন্ন প্রযুক্তির অবদানে নিত্য নতুন সুবিধা-ব্যবস্থার উন্নতি সাধিত হওয়ার ফলে, এখন আর আগের মত করে কাগজের খাতায় তালিকা করতে হয় না। এবং পাঠক সংশ্লিষ্টের তথ্য নষ্ট হওয়ার কোন ভয় থাকে না। বরং প্রযু্ক্তির অবদানে বর্তমানে কম্পিউটারের মাধ্যমে সহজেই লাইব্রেরির তথ্যসমূহ সংরক্ষণ করা সম্ভব হয়েছে।

লাইব্রেরির গতানুগতিক ধরন, কার্যধারা, গ্রন্থাগারিক/লাইব্রেরিয়ানের বিশেষত্ব এবং পুস্তক সংগ্রহ বজায় রাখার জন্য প্রয়োজনীয় ফাংশনের উপর নির্ভর করে ভূমিকা এবং দায়িত্বগুলির ব্যাপকভাবে পরিবর্তিত হয়েছে । এবং সর্বোপরি বইয়ের ব্যবহারকারী বা পাঠকদের জন্যও বিষয়গুলো আরও উপলদ্ধকর হয়েছে।

লাইব্রেরিয়ানের কাজ কী?

একজন লাইব্রেরিয়ানের কাজ হল একটি লাইব্রেরির পছন্দের তালিকা তৈরি করা, বই সংগ্রহ করা, সেগুলিকে একটি নির্দিষ্ট ক্রমে সাজানো, নতুন সাময়িকী বা বই কেনা এবং কর্মশালার নেতৃত্ব দেওয়া। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা পর্যন্ত এই পেশায় ক্যারিয়ারের বিস্তৃত বিকল্প রয়েছে।

লাইব্রেরিয়ানের ধরণ ও শ্রেনিবিভাগ

প্রতিটি ক্ষেত্রেই বিশেষ কিছু বিন্যাসের উপর ভিত্তি করে, সেই বিষয়বস্তুর ধরণ এবং শ্রেনীবিভাগ রয়েছে। তেমনি লাইব্রেরিয়ানের ধরন ও শ্রেনিবিভাগ’ও রয়েছে।

লাইব্রেরিয়ানের ধরণ বা প্রকারভেদ

বিশেষজ্ঞদের মতে, বিভিন্ন ধরণের লাইব্রেরিয়ান রয়েছে। যাদের মধ্যে ভিন্ন ভিন্ন কিছু কার্য-বিশেষত্ব থাকে। এবং এদেরকে আমরা সমষ্টিগতভাবে চার (৪) ধরণের হিসেবে বিবেচনা করেছি।

লাইব্রেরিয়ান বা গ্রন্থাগারিক কয় ধরণের? উত্তরঃ লাইব্রেরিয়ান সাধারণত ৪ (চার) ধরণের। যথাঃ ১) পাবলিক লাইব্রেরিয়ান ২) স্কুলের গ্রন্থাগারিক ৩) একাডেমিক লাইব্রেরিয়ান ৪) বিশেষত্ব-কেন্দ্রিক গ্রন্থাগারিক

পাবলিক লাইব্রেরিয়ান

পাবলিক লাইব্রেরিগুলো সাধারণত শহর কেন্দ্রিক প্রতিষ্ঠা করা হয়। অর্থাৎ যেখানে বিপুল মানুষের গণসমাগম রয়েছে, সেখানেই পাবলিক পাঠাগারগুলো বেশি দেখা যায়। এসকল লাইব্রেরিগুলোতে সদস্য হিসেবে শিশু, কিশোর, কম-বয়সী, প্রাপ্ত-বয়স্ক, বৃদ্ধ-বৃদ্ধাসহ সকল শ্রেনির মানুষ পাবেন।

পাবলিক লাইব্রেরিয়ানের কাজ কী?

একজন পাবলিক লাইব্রেরিয়ানের প্রধান কাজ কী এবং পাবলিক লাইব্রেরিয়ান কাকে বলে? উত্তর: পাবলিক লাইব্রেরিকে সংগঠিত করতে, নব্য-নতুন বই-পুস্তক তালিকায়ন করতে এবং গ্রন্থাগারের ডাটাবেস বা তথ্যবহিতে নতুন বইসমূহের বিবরণ তালিকাভুক্ত ও লিপিব্ধ করতে যার উপর দায়িত্ব প্রদান করা হয়। তাকে পাবলিক লাইব্রেরিয়ান বলে। এবং উল্লিখিত বিষয়গুলোই পাবলিক লাইব্রেরিয়ানের প্রধান কাজ বা মৌলিক দায়িত্ব।

এছাড়াও,
পাবলিক লাইব্রেরিয়ানরা চাইলেই- কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে বিভিন্ন প্রস্তাবিত সাহিত্য অনুষ্ঠান/প্রোগ্রাম পরিচালনা করতে পারবেন। এবং অঞ্চলভিত্তিক বিভিন্ন বই সংগঠন বা বুক ক্লাব প্রতিষ্ঠা, ভ্রাম্যমান বই মেলাসহ স্থানীয় বিভিন্ন ইভেন্ট পরিচালনা ও ব্যবস্থাপনা করতে পারবেন।

স্কুল লাইব্রেরিয়ান

স্কুল লাইব্রেরিয়ান কাকে বলে? এবং তাদের কাজ কী? উত্তরঃ একজন স্কুল লাইব্রেরিয়ান প্রাথমিক, মাধ্যমিক এমনকি উচ্চ বিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে করে থাকেন। এধরণের স্কুল পর্যায়ের লাইব্রেরিয়ানের প্রধান কাজ হলো: শিক্ষার্থীদের কীভাবে একটি লাইব্রেরিতে কার্যকরভাবে ব্যবহার করতে হয় এবং বই পাঠের সময়, লাইব্রেরিতে কিধরণের পরিবেশ বজায় রাখতে হয়; সে সম্পর্কে নির্দেশনা দেওয়া। একজন কর্মমনোযোগী লাইব্রেরিয়ান যেমন কাজের অবসর সময়ে নিজে বই পড়ে থাকেন, তেমনি শিক্ষার্থীসহ সকলকে বই পাঠের প্রতি ভালোবাসা জাগিয়ে তুলতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকেন।

একাডেমিক লাইব্রেরিয়ান

একাডেমিক লাইব্রেরিয়ান কাকে বলে? উত্তরঃ যেই ব্যক্তি বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরি বা গ্রন্থাগারে কাজ করেন, তাকে একাডেমিক লাইব্রেরিয়ান বলে।

একাডেমিক লাইব্রেরিয়ানের কাজ কী? উত্তরঃ একাডেমিক লাইব্রেরিয়ানের প্রধান কাজ হলো: শিক্ষার্থীদেরকে গ্রন্থাগারের বিভিন্ন গবেষণামূলক বই সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও রিসার্চ কাজে বিভিন্ন তথ্য দিয়ে সাহায্য করা। এমনি অনলাইনে বিভিন্ন গবেষণাপত্র এবং প্রজেক্টের জন্য প্রয়োজনীয় হার্ডকপি ভিত্তিক উপকরণসামগ্রী খুঁজে পেতে নিবেদিতপ্রাণে লাইব্রেরির ডাটাবেস ব্যবহার করতে সাহায্য করা এবং প্রয়োজনীয় দিক -নির্দেশনা প্রদান করা। লাইব্রেরিয়ানদের কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের বয়সের উপর নির্ভর করে নিদর্শন এবং সাহিত্য রক্ষণাবেক্ষণ ও সংরক্ষণের জন্য দায়িত্ব প্রদান করা হতে পারে। তারা পুরানো বই-পুস্তকের পৃষ্ঠাগুলি স্ক্যান করার এবং একটি অনলাইন ডাটাবেসে সংরক্ষণ করার দায়িত্বে থাকতে পারে যাতে গ্রন্থাগারের গ্রাহকরা বইটির অখণ্ডতা রক্ষা করার সময় সেগুলি অ্যাক্সেস করতে পারে।

বিশেষত্ব-কেন্দ্রিক লাইব্রেরিয়ান

বিশেষত্ব-কেন্দ্রিক গন্থাগারিক এই শ্রেনির লাইব্রেরিয়ানদেরকে Specialty-focused librarian ‘ও বলা হয়।
একই ধারার বা একই সাহিত্যসম্বলিত অসংখ্য বই পুস্তকের সংগ্রহশালাকে একসাথে বিশেষত্ব-কেন্দ্রিক লাইব্রেরি বলা হয়। এই লাইব্রেরিগুলো সাধারণ কোন মিউজিয়াম, সাহিত্য কর্মশালা, জাতীয় জাদুঘর বা বিশেষ কোন গবেষনাগারে প্রতিষ্ঠা করা হয়। এছাড়াও, বিভিন্ন কোর্ট-কাচারি অথবা আইন স্কুল-কলেজের পাঠাগারগুলিতেও আইন সম্পর্কি বিশাল বই ভান্ডার এবং অন্যন্য পাঠ্য পুস্তকের সংগ্রহ থাকে।

লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায়

লাইব্রেরিয়ান কোর্স করার জন্য সেরা সরকারি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা
লাইব্রেরিয়ান কোর্স করার জন্য সেরা সরকারি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা

বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তাদের মাধ্যমে আপনি লাইব্রেরিয়ান কোর্স করতে পারবেন। আমাদের দেশে ডিপ্লোমা ভিত্তিক কোর্সের ব্যবস্থা”ও রয়েছে। আবার অনার্সভিত্তিক কোর্স’ও আছে।

লাইব্রেরিয়ান কোর্স কিভাবে করবো? লাইব্রেরিয়ান হওয়ার জন্য প্রথম আপনাকে স্বীকৃত কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয় হতে ডিপ্লোমা ইন লাইব্রেরি সাইন্স অথবা অনার্স ইন লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট প্রয়োজনীয় শিক্ষাগত যোগ্যতা অর্জন করতে হবে। অবশ্য অনেক নিয়োগদাতাগণ “ইনফরমেশন সায়েন্স” এর গ্রাজুয়েট থাকলে লাইব্রেরিয়ান জব কর্মী হিসেবে নিয়োগ দিয়ে থাকে।

লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায়? ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি, রাজশাহী, নোয়াখালী, চিটাগং, কিশোরগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, যশোর, বরিশাল, ময়মনসিংহ, পটুয়াখালী, চাঁদপুর, সাতক্ষীরা, খুলনা, সিলেট, মাদারীপুর, গাজীপুর এবং রংপুরসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাবলিক / সরকারি এবং বেসরকারি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজ প্রতিষ্ঠান আছে। যেখান থেকে লাইব্রেরিয়ান কোর্স করতে পারবেন।

আপনার সুবিধার্ধে কয়েকটি সরকারি এবং বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম উল্লেখ করা হলো: যেখান থেকে আপনি লাইব্রেরি বিষয়ে ডিপ্লোমা, অনার্স কিংবা মাস্টার্স কমপ্লিট করতে পারবেন।

লাইব্রেরিয়ান কোর্স করার জন্য সরকারি প্রতিষ্ঠানের তালিকা

আপনি যদি জানতে চান যে, সরকারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায়, তাহলে প্রয়োজনীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নামগুলো উল্লেখ দেখে নিন। যদি কোন তথ্য জানার প্রয়োজন হয়, তাহলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

লাইব্রেরিয়ান কোর্স করার জন্য বাংলাদেশের সেরা সরকারি ৫টি বিশ্ববিদ্যালয়:

১) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাকা, রমনা – শাহবাগের নিকটতম)।
২) রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাজশাহীতে অবস্থিত)। লাইব্রেরিয়ান কোর্স রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
৩) নোয়াখালি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (নোয়াখালি)
৪) ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি অব চিটাগং
৫) ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া। লাইব্রেরিয়ান কোর্স ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়

Top 5 Government Universities in Bangladesh for Librarian Courses

  • 1) Dhaka University (Dhaka, Ramna – nearest to Shahbag).
  • 2) Rajshahi University (located in Rajshahi).
  • 3) Noakhali University of Science and Technology (Noakhali)
  • 4) University of Science and Technology of Chittagong
  • 5) Islamic University, Kushtia.

বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায়?

লাইব্রেরিয়ান কোর্স করার জন্য বাংলাদেশের সেরা ৬ টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা:

  • ১) এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ।
  • ২) ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি।
  • ৩) ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি। (ঢাকায় অবস্থিত)
  • ৪) ঈশা খাঁ ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (কিশোরগঞ্জ অবস্থিত)।
  • ৫) খাজা ইউনুস আলি ইউনিভার্সিটি (সিরাজগঞ্জ)।
  • ৬) রয়্যাল ইউনিভার্সিটি অব ঢাকা

আপনি যদি সরকারি চান্স না পান অথবা অন্য যেকোন সুবিধা-অসুবিধার কারণে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে লাইব্রেরি বিষয়ক কোর্স করতে চান: তাহলে নিচের তালিকাটি লক্ষ্য করুন। বি.দ্রঃ এসকল প্রতিষ্ঠান থেকে আপনি মাস্টার করতে পারবেন কিনা? সুবিধা কি কি, সেসকল বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষের সাথে আগে চূড়ান্ত কথা বলে নিবেন।

List of top 6 private universities in Bangladesh for doing librarian courses

  • 1) the Asian University of Bangladesh.
  • 2) Daffodil International University.
  • 3) East-West University. (Located in Dhaka)
  • 4) Isha Khan International University (located in Kishoreganj).
  • 5) Khwaja Yunus Ali University (Sirajganj).
  • 6) Royal University of Dhaka

লাইব্রেরিয়ান অনার্স কোর্স করার জন্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকা প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা

লাইব্রেরিয়ান কোর্স করার প্রতিষ্ঠানের তালিকা সমূহ
লাইব্রেরিয়ান কোর্স করার প্রতিষ্ঠানের তালিকা সমূহ
  • লাইব্রেরিয়ান অনার্স কোর্স করা যায়? আমরা জানি, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অধীনে আমাদের দেশে অনার্স কোর্স ব্যবস্থা চালু রয়েছে। এবং আপনি চাইলেই নিম্নুক্ত যেকোন একটি প্রতিষ্ঠান থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে লাইব্রেরিয়ান কোর্স করতে পারবেন।

লাইব্রেরিয়ান কোর্সে অনার্স করার জন্য প্রতিষ্ঠান:

  • ইনস্টিটিউট ফর লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট, ঢাকা।
  • ইনস্টিটিউট অফ লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন সায়েন্স,ঢাকা।
  • নিউ মডেল ডিগ্রী কলেজ, ঢাকা,
  • লালমাটিয়া মহিলা কলেজ, ঢাকা (শুধুমাত্র মেয়েদের জন্য)।
  • ঢাকা ইনস্টিটিউট অফ ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি, ঢাকা।
  • গাজীপুর লাইব্রেরি সায়েন্স এন্ড প্রফেশনাল ইনস্টিটিউট। লাইব্রেরিয়ান কোর্স গাজীপুর।
  • ড. এম মিজানুর রহমান প্রফেশনাল কলেজ। ঢাকায় অবস্থিত।
  • আলহাজ্ব মকবুল হোসেন ডিগ্রী কলেজ।
  • ঢাকা প্রফেশনাল কলেজ, ঢাকা।
  • ইনস্টিটিউট অফ এডুকেশন লাইব্রেরি এন্ড ম্যানেজমেন্ট – ইলাম, খুলনা।
  • ইনস্টিটিউট অফ লাইব্রেরি আর্টস কমার্স এন্ড সায়েন্স – ইলাক্স, খুলনা।
  • বগুড়া লাইব্রেরি সায়েন্স কলেজ
  • ইনস্টিটিউট অফ লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন সায়েন্স, মাদারিপুর।
  • উপমা ইন্সটিটিউট অফ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি, রংপুর।
  • প্রফেশনাল কলেজ, বগুড়া
  • বাংলাদেশ সাউথ ওয়েস্ট মডেল ইনস্টিটিউট, যশোর।
  • গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট, বরিশাল।
  • ইনস্টিটিউট অফ লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন সায়েন্স – ইলিস, রাজশাহী।
  • হাজীগঞ্জ আইডিয়াল কলেজ অফ এডুকেশন, চাঁদপুর।
  • পটুয়াখালী গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান কলেজ।
  • সুন্দরবন কলেজ অফ টেকনোলজি, সাতক্ষীতা।
  • কলেজ অফ এডুকেশন, সাতক্ষীরা।
  • জাস ইনস্টিটিউট সিলেট।
  • মডার্ন ইনস্টিটিউট অফ লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন সাইন্স, জয়পুরহাট।
  • এবং ইনস্টিটিউট অফ লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন সায়েন্স – ইলিস, ময়মনসিংহ।

Institution for doing Honors in Librarian Course

The following is a list of the best institutions for conducting librarian courses under the National University:

  • Institute for Library and Information Management, Dhaka.
  • Institute of Library and Information Science, Dhaka.
  • New Model Degree College, Dhaka,
  • Lalmatia Women’s College, Dhaka (for girls only).
  • Dhaka Institute of Fashion and Technology, Dhaka.
  • Gazipur Library Science and Professional Institute, Dhaka, Gazipur.
  • Dr. M Mizanur Rahman Professional College. Located in Dhaka.
  • Alhaj Maqbool Hossain Degree College.
  • Dhaka Professional College, Dhaka.
  • Institute of Education Library and Management – Ilam, Khulna.
  • Institute of Library Arts, Commerce and Science – Elex, Khulna.
  • Bogra Library Science College
  • Institute of Library and Information Science, Madaripur.
  • Upma Institute of Science and Technology, Rangpur.
  • Professional College, Bogra
  • Bangladesh South West Model Institute, Jessore.
  • Library and Information Science Institute, Barisal.
  • Institute of Library and Information Science – Ellis, Rajshahi.
  • Hajiganj Ideal College of Education, Chandpur.
  • Patuakhali Library and Information Science College.
  • Sundarbans College of Technology, Satkhita.
  • College of Education, Satkhira.
  • Jass Institute Sylhet.
  • Modern Institute of Library and Information Science, Joypurhat.
  • and Institute of Library and Information Science – Ellis, Mymensingh.

লাইব্রেরিয়ান কোর্সে ডিপ্লোমা করার জন্য সেরা প্রতিষ্ঠানসমূহের তালিকা

লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায় সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান তালিকা
লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায় সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান তালিকা
  • ড. এম মিজানুর রহমান প্রফেশনাল কলেজ, ঢাকা।
  • হাজীগঞ্জ আইডিয়াল কলেজ অফ এডুকেশন, চাঁদপুর।
  • জাস ইনস্টিটিউট, সিলেট।
  • ইনস্টিটিউট অফ প্রফেশনাল এডুকেশন, কুমিল্লা।
  • উপমা উনস্টিটিউট অফ সায়েন্স এন্ড টেকনোলজি, রংপুর।
  • গাজীপুর লাইব্রেরি সাইন্স এন্ড প্রফেশনাল ইনস্টিটিউট, ঢাকা-গাজিপুর।
  • কলেজ অফ এডুকেশন, সাতক্ষীরা
  • ইনস্টিটিউট ফর লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন স্টাডিজ – ইলিস, রাজশাহী।
  • এস এফ গ্রন্থাগার ও তথ্যবিজ্ঞান কলেজ, দিনাজপুর।
  • বগুড়া লাইব্রেরি সাইন্স কলেজ, বগুড়া।
  • মডার্ণ ইনস্টিটিউট অফ লাইব্রেরি ইনফরমেশন সাইন্স, জয়পুরহাট।
  • ইনস্টিটিউট অব লাইব্রেরি এন্ড ইনফরমেশন সায়েন্স।
  • এখানে কেবল দেশসেরা ডিপ্লোমা ইন লাইব্রেরি সাইন্স কোর্স করার জন্য উল্লেখযোগ্য প্রতিষ্ঠানগুলোর নাম লিপিবদ্ধ করা হলো। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান রয়েছে, যারা লাইব্রেরিয়ান কোর্স করিয়ে থাকে। অনুগ্রহ করে স্বজ্ঞানে খুজ নিন।

List of Best Institutions for Diploma in Librarian Courses

  • Dr. M Mizanur Rahman Professional College, Dhaka.
  • Hajiganj Ideal College of Education, Chandpur.
  • Jass Institute, Sylhet.
  • Institute of Professional Education, Comilla.
  • Upma Institute of Science and Technology, Rangpur.
  • Gazipur Library Science and Professional Institute, Dhaka-Gazipur.
  • College of Education, Satkhira
  • Institute for Library and Information Studies – Ellis, Rajshahi.
  • SF Library and Informatics College, Dinajpur.
  • Bogra Library Science College, Bogra.
  • Modern Institute of Library Information Science, Joypurhat.
  • Institute of Library and Information Science.

লাইব্রেরিয়ান কোর্স করার জন্য, ভারতের (ইন্ডিয়া) সেরা কলেজ সমূহের তালিকা

আপনি কি ভারতবাসী? জানতে চান যে: লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায়? তাহলে নিচে উল্লেখিত লাইব্রেরিয়ান কোর্স করার জন্য, ভারতের (ইন্ডিয়া) সেরা ৯ টি কলেজের তালিকাটি দেখুন!

  1. বিএইচইউ (বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়) – BHU (Benares Hindu University)
  2. জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া – Jamia Millia Islamia
  3. দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয় – University of Delhi
  4. আন্নামালাই বিশ্ববিদ্যালয় – Annamalai University
  5. বিলাসপুর বিশ্ববিদ্যালয় – Bilaspur University
  6. ওসমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয় – University of Osmania
  7. জিভাজি বিশ্ববিদ্যালয় – Jivaji University
  8. বিআইটি (বিড়লা ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজি) – BIT (Birla Institute of Technology)
  9. ভাবনগর বিশ্ববিদ্যালয় – Bhavnagar University

লাইব্রেরিয়ান যোগ্যতা/প্রয়োজনীয়তা

কর্মরত বা নিয়োগকৃত প্রতিষ্ঠানের উপর নির্ভর করে একজন লাইব্রেরিয়ানের বিভিন্ন প্রয়োজনীয়তা থাকতে পারে এবং বিশেষ কিছু যোগ্যতা থাকতে পারে। বিশেষজ্ঞদের মতামত অনুযায়ী একজন লাইব্রেরিয়ানের কিছু প্রাথমিক যোগ্যতা থাকা উচিত।

লাইব্রেরিয়ান জব করতে হলে যেসকল যোগ্যতা থাকা আবশ্যক:লাইব্রেরি জব পেতে নিম্নুক্ত তিনটি যোগ্যতা থাকতে হবে।

  1. স্নাতক ডিগ্রী / স্নাতকোত্তর ডিগ্রি
  2. প্রাসঙ্গিক কাজের অভিজ্ঞতা
  3. লাইসেন্স বা সার্টিফিকেশন

লাইব্রেরি কত ধরনের ও কি কি?

পাঠকদের কথা বিবেচনা করে, লাইব্রেরি সাধারণত চার প্রকার। যথাঃ ১) একাডেমিক লাইব্রেরি, ২) বিশেষ গ্রন্থাগার, ৩) পাবলিক লাইব্রেরি, এবং.
৪) জাতীয় গ্রন্থাগার বা ন্যাশনাল লাইব্রেরি।

লাইব্রেরিয়ান কোর্স বই

একজন লাইব্রেরিয়ানের ভবিষ্যত ক্যারিয়ার কেমন হতে পারে?

আমাদের দেশে অল্প সংখ্যক লাইব্রেরি এবং গবেষণা প্রতিষ্ঠান থাকায় গ্রন্থাগারিকের অভাব রয়েছে। সাধারণত, আপনি একজন গ্রন্থাগারিকের সহকারী হিসাবে আপনার কাজ শুরু করবেন। আপনি আপনার কর্মজীবনের শীর্ষে একটি প্রতিষ্ঠানের প্রধান গ্রন্থাগারিক/লাইব্রেরিয়ান হিসাবে কাজ করতে পারেন।

প্রযুক্তির এই সময়ে, লাইব্রেরি কার্যক্রমের পরিসর বিস্তৃত হয়েছে। এ কাজ আর শুধুমাত্র কাগজে-কলমে সীমাবদ্ধ নেই। বিপুল সংখ্যক লাইব্রেরি তাদের সংগ্রহশালা ডিজিটালাইজ করছে। তাদের পরিচালনার জন্য তাদের একজন উপযুক্ত লাইব্রেরিয়ান প্রয়োজন। আপনি যদি জ্ঞান-ভিত্তিক কর্মক্ষেত্রে কাজ করতে চান তবে লাইব্রেরিয়ান পদে চাকরি করাটা একটি উপযুক্ত পেশা হতে পারে।

1 thought on “লাইব্রেরিয়ান কোর্স কোথায় করা যায়? সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান তালিকা ২০২২”

  1. I was able to find good info from your blog articles. লাইব্রেরিয়ান কোর্স সম্পর্কিত আরও পোষ্ট চাই। প্লিজ

    Reply

Leave a Comment