Health

মোটা হওয়ার ঔষধের নাম। ছেলেদের, মেয়েদের, হারবাল, ভিটামিন ঔষধ

কোন রকমের পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ছাড়া ছেলে  ও মেয়েদের সকলের জন্য হারবাল ঔষধ ও ভিটামিন ফাইল এবং মোটা হওয়ার ঔষধের নাম। এগুলোর মাধ্যমে ৭ দিনে মোটা হওয়ার উপায় জানতে পারবেন। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক …

প্রিয় পাঠক আজকে আমাদের এই পোস্টটিতে আপনি পাবেন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ছাড়া মোটা হওয়ার হারবাল এবং ভিটামিন ঔষধের নাম। যারা অনেক চিকন বা পাতলা স্থায়ী ভাবে মোটা হতে চাচ্ছেন আজকের পোস্টটি তাদের জন্যই। 

বর্তমান সময়ে ছেলে-মেয়েরা এবং মহিলারা মোটা হওয়ার ওষুধের নাম খুঁজে থাকেন। অন্যদিকে অনেকের আবার দীর্ঘস্থায়ী অসুস্থতা, বিভিন্ন ধরনের সার্জারি এবং শরীরে আঘাতের কারণে শরীরের ওজন হ্রাস পেতে পারে বা চিকন হয়ে যেতে পারে।  এতে যদি আপনার স্বাস্থ্য বিষয়ক ডাক্তার আপনাকে পরামর্শ দেয় ওজন বৃদ্ধির জন্য, তবে তিনি নিজেই আপনাকে পরামর্শ দিবেন, কিভাবে ওজন বৃদ্ধি করতে হবে? কি খাবার খেতে হবে, কোনো ঔষধ খেতে হবে কিনা।

মোটা হওয়ার ঔষধের নাম

ওজন বৃদ্ধি করতে উচ্চ প্রোটিনযুক্ত খাবার গ্রহণ করুন যেমন- দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার, ডাল, ডিম, বাদাম, ছোলা, সয়াবিন, পনির, চিকেন, মাছ ইত্যাদি। এগুলো প্রাকৃতিকভাবে মোটা হওয়ার উপায়।  আপনি যদি শুধু খাবার খেয়ে এবং ব্যায়াম করে আপনার স্বাস্থ্যের উন্নতি দেখতে না পান, তবে আপনি বিভিন্ন ঔষধ, হারবাল ওষুধ, ভিটামিন ওষুধ, সেবনের মাধ্যমে মোটা হতে পারেন। 

যাই হোক, আপনি যে ওষুধই ব্যবহার করেন না কেন স্বাস্থ্য সেবা প্রদানকারীর পর্যবেক্ষণ এবং পরামর্শ ছাড়া ব্যবহার না করাই ভাল, কারণ এতে অনেক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থাকতে পারে। 

আপনি আপনার চিকন স্বাস্থ্য মোটা করতে গিয়ে যদি স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়ে যান তাহলে তো আপনার এতে কোনো লাভ হলো না।

আপনি ফার্মেসিতে বিভিন্ন ভিটামিন ওষুধ দেখতে পাবেন।  বাংলাদেশের ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর (ডিজিডিএ) (প্রধান ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা এবং এটি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে কাজ করে।) এগুলো নিয়ন্ত্রণ বা নজরদারি না থাকার কারণে দোকানে আমরা বিভিন্ন ধরনের ঔষধ দেখতে পাই।

পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ছাড়া মোটা হওয়ার ওষুধ

মোটা হওয়ার ওষুধ বলতে মূলত রুচি বৃদ্ধিকারক ওষুধ কেই বুঝায়।  আপনি যদি মনে করেন যে আপনার ওজন বাড়ানোর দরকার, তাহলে এখানে কিছু ঔষধের নাম উল্লেখ করলাম যা ব্যবহার করে আপনার ওজন বাড়াতে বা মোটা হতে সাহায্য করবে।

সিনকারা সিরাপ

সিনকারা একটি হারবাল মাল্টিভিটামিন সিরাপ। এটি একটি হারবাল শক্তিবর্ধক এবং সকল কোষ-কলায় পৌঁছানোর ক্ষমতাসম্পন্ন বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত সিরাপ।

উপাদান: প্রতি ৫ মিলি সিরাপে আছে (জলীয় নির্যাস আকারে)-  

  • গাজর = ২০০ মিগ্রা, 
  • আমলকী = ১০০ মিগ্রা, 
  • আগর = ৫০ মিগ্রা, 
  • বড় এলাচ = ৫০ মিগ্রা, 
  • ধনিয়া = ৫০ মিগ্রা, 
  • নাগরমুথা = ৫০ মিগ্রা, 
  • ছোট এলাচ = ৫০ মিগ্রা, 
  • লবঙ্গ = ৫০ মিগ্রা, 
  •  জটামাংসী = ৫০ মিগ্রা, 
  • একাঙ্গি = ৫০ মিগ্রা, 
  • দারচিনি = ৫০ মিগ্রা, 
  • গোলাপ = ৫০ মিগ্রা, 
  • শ্বেত চন্দন = ৫০ মিগ্রা, 
  • তুলসী = ৫০ মিগ্রা এবং 
  • শৈলজ = ৫০ মিগ্রা।

সিনকারা সিরাপের উপকারিতা ও অপকারিতা

সিনকারা সিরাপের উপকারিতা ও অপকারিতা
সিনকারা সিরাপের উপকারিতা ও অপকারিতা

উপকারিতা: আপনার যদি সাধারন দূর্বলতা, রোগ কালীন দুর্বলতা, স্নায়ুবিক দুর্বলতা, পাকস্থলী ও লিভারের দুর্বলতা, রক্তস্বল্পতা, ভিটামিন এ ও সি এর ঘাটতি, মেধা ও স্মৃতিশক্তি হ্রাস ও অপুষ্টি, মাতৃদুগ্ধ নিঃসরন হ্রাস হয়ে থাকে। তাহলে এধরণের সমস্যা দূর করতে সিনকারা সিরাপ অতি উত্তম ভূমিকা পালন করে। 

অপকারিতা: ঔষধি গাছ গাছরা গুণসমৃদ্ধ সিরাপটি প্রাপ্তবয়স্ক থেকে শুরু করে ছোট্ট শিশু সকলেই খেতে পারে।  নির্ধারিত মাত্রায় সেবনে এর কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। 

সিনকারা সিরাপের দাম কত

বাজারে  সাধারণত  ছোট, মাঝারি এবং বড়  ৩ সাইজের সিনকারা সিরাপ পাওয়া যায়।  পরিমাণ অনুযায়ী সিনকারা সিরাপের দাম। 

  • ৪৫০মি.লি. দাম ২০০ টাকা
  • ২২০মি.লি. দাম ১২০ টাকা  এবং 
  • ১০০মি.লি. এর দাম ৬০টাকা।

বি.দ্রঃ বাজারের পরিস্থিতি ও বানিজ্য তারতম্যের ভিত্তিতে সিনকারা সিরাপের দাম বাড়তে কিংবা কমতে পারে।

মোটা হওয়ার ঔষধের নাম বাংলাদেশ

রুচিটেব, আমলকি, পিউটন সিরাপ, রুটিপ্লাস সিরাপ বাংলাদেশের মোটা হওয়ার ঔষধের নাম। 

মোটা হওয়ার হারবাল ঔষধের নাম

অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শে আমলকি সিরাপ আপনি স্বাস্থ্য বৃদ্ধির জন্য ব্যবহার করতে পারেন।  এটি সাধারণত খাবারের রুচি বর্ধনের জন্য চিকিৎসকেরা পরামর্শ করে থাকে। 

এছাড়াও আপনি মোটা হতে ইউ-টন, কেয়ার টন, এবং স্থায়ীভাবে মোটা হতে আলফা-ইউ, আমলকি প্লাস সিরাপ, জার্মানির “আলফালফা” খেতে পারেন। 

শারীরিক কোনো সমস্যা না থাকলে ঔষধের পিছনে না ঘুরে পুষ্টিকর খাবার খাওয়াই উত্তম হবে।

মোটা হওয়ার হোমিও ঔষধের নাম

মোটা হওয়ার জার্মানির হোমিওপ্যাথি ঔষধ আলফা আলফা (Q), সিনকারা সিরাপ, আলফামল্ট (Alfamalt),ডক্টর বিশ্বাসের গুড হেলথ  (Dr. Biswas Good Health).

আলফা আলফা (Q) -এটি হজম শক্তি বৃদ্ধি করে, ফলে খাদ্য সহজে হজম হয়ে পুষ্টি উপাদান শরীরে লাগে। এছাড়া এই ঔষধ শরীরে রক্ত ও মাংস তৈরিতে সহায়তা করে। ফলে নিয়মিত খেলে শরীরের ওজন বৃদ্ধি পায়, অর্থাৎ আপনাকে স্বাস্থ্যবান হতে সহায়কের ভূমিকা পালন করে। 

মোটা হওয়ার সবচেয়ে ভালো ঔষধ

উপরে ভালো করে পড়ে থাকলে আপনি বুঝতে পারবেন সবচেয়ে ভালো মোটা হওয়ার ঔষধ হচ্ছে হামদর্দ ল্যাবরেটরীজ লিমিটেডের সিনকারা।  এইসব ওষুধ সেবনের ফলে ক্ষুধার পরিমাণ বৃদ্ধি পায়।  সিনকারা সেবনের ফলে আপনার শরীরে যে পরিমাণ শক্তি ব্যয় করবেন তার চেয়ে বেশি শক্তি উৎপন্ন হবে, এবং বারবার ক্ষুধা অনুভব হবে।  এজন্য মন না চাইলেও খেতেই হবে। এই ঔষধটি সেবনে যেহেতু আপনার রুচি বেড়ে যাবে সুতরাং আপনি সুষম খাবার গ্রহন করতে পারবেন স্বাস্থ্যকর উপায়ে মোটা হতে পারবেন।

মোটা হওয়ার ভিটামিন ট্যাবলেট এর নাম

অনেকেই আছে মোটা হওয়ার ক্যাপসুল খেয়ে মোটা হয়েছেন। কিন্তু এগুলো মোটা বেশিদিন থাকে না। আপনি অনেক রোগা?  তাহলে মোটা হতে চাইলে ভিটামিন ট্যাবলেট খেতে পারেন। আমাদের শরীরে পর্যাপ্ত ভিটামিন এর অভাব হলে শরীর দুর্বল হয়ে যায়। কারো কথায় আপনি মোটা হওয়ার ঔষধ সেবন করতে যাবেন না। একজন একটা ওষুধ খেয়ে মোটা হয়েছে, তাই বলেছে আপনিও হবেন তার কোন গ্যারান্টি নেই। ফার্মেসীগুলোতে অনেক ধরনের ভিটামিন ট্যাবলেট পাওয়া যায়, তবে ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া কোন ট্যাবলেট গ্রহণ করবেন না।

মোটা হওয়ার ভিটামিন ঔষধের নাম

মোটা হওয়ার সবচেয়ে কার্যকরী ভিটামিন সিরাপ হচ্ছে পিউটন সিরাপ। তবে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে সেবন করবেন নয়তো হিতে বিপরীত হতে পারে।

ছেলেদের মোটা হওয়ার ঔষধের নাম

মেয়েদের থেকে ছেলেদের মোটা হওয়ার ঔষধের নাম কি ভিন্ন হবে? জেনে নেয়া যাক-

ছেলেদের শরীরের গঠন মেয়েদের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। শারীরিক গঠনের ভিন্নতার কারণে ছেলেদের মোটা হওয়ার কারণটা বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ভিন্ন হয়ে থাকে। খুবই অল্প সময়ের মধ্যে আপনি যদি মোটা হতে চান তাহলে পিউটন সিরাপ, সিনকারা সিরাপ, এবং রুচিবোধ খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। মনে রাখবেন, ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া এবং অতিরিক্ত ব্যবহার করা শরীরের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে।

মেয়েদের মোটা হওয়ার ঔষধের নাম

মেয়েদের শারীরিক গঠন ছেলেদের চেয়ে সম্পূর্ণ আলাদা। অল্প বয়সে মেয়েরা অনেক সময় রোগা-পাতলা থাকলেও, দেখা যায় কিশোরী বয়সে যখন মেয়েরা খেলাধুলা বাদ দেয়। তখন দেখা যায় তাদের শরীর এমনিতেই আস্তে আস্তে মোটা হয়ে যায়। আবার অনেকের ক্ষেত্রে এর উল্টোটাও দেখা দেয়। ডাক্তারের পরামর্শে যে কোন ট্যাবলেট সেবনের মাধ্যমে আপনি মোটা হতে পারেন। জেনকোভিট ট্যাবলেট মেয়েদের মোটা হতে অনেকটা সাহায্য করে।

জেনকোভিট ট্যাবলেটের উপাদান:

 ভিটামিন: ভিটামিন A, ভিটামিন B1 (থায়ামিন), Vitamin B2 (Riboflavin),Vitamin B3 (Niacin), Vitamin B5 (Pantothenic acid), Vitamin B6 (Pyridoxine): ভিটামিন বি7 (বায়োটিন), ভিটামিন বি9 (ফলিক অ্যাসিড), ভিটামিন বি12 (মিথাইলকোবালামিন), ভিটামিন সি, ভিটামিন ডি3, ভিটামিন ই,

খনিজ পদার্থ: জিঙ্ক, ম্যাগনেসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ,  লোডিন, কপার, সেলেনিয়াম, ক্রোমিয়াম, আঙ্গুর বীজ নির্যাস

ট্যাবলেট এর উপাদান গুলো দেখে আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন এটা শরীরের জন্য কতটা উপকারী হতে পারে।

মহিলাদের মোটা হওয়ার ঔষধের নাম

মোটা হওয়ার ঔষধের নাম। ছেলেদের মেয়েদের হারবাল ভিটামিন ঔষধ
মোটা হওয়ার ঔষধের নাম। ছেলেদের মেয়েদের হারবাল ভিটামিন ঔষধ

বর্তমান সময়ে মহিলারা খুবই স্বাস্থ্যসচেতন। তারা তাদের ফিটনেস নিয়ে খুবই চিন্তায় থাকে। এখানে মহিলাদের মোটা হওয়ার কিছু ঔষধের নাম উল্লেখ করলাম। সেগুলো আপনারা অনলাইন শপ এর মাধ্যমে পেয়ে যাবেন।

  • ফিটনেস ফ্যাক্টরি গ্লুটেন মুক্ত মহিলাদের ওজন বৃদ্ধিকারী 
  • আয়ুরলেফ পিলস ওজন বাড়ানোর বড়ি
  • দ্রুত ওজনের জন্য ওয়াইল্ড বক হাইপার বাল্ক গেইন ম্যাস এবং ওয়েট গেইনার ক্যাপসুল
  • মাইপ্রো স্পোর্ট নিউট্রিশন হাই প্রোটিন মহিলাদের ওজন বৃদ্ধিকারী
  • ন্যাচারেড ওজন বৃদ্ধি তাত্ক্ষণিক পুষ্টি পানীয় মিশ্রণ, ভ্যানিলা, 20.3 আউন্স প্রাকৃতিক
  • মহিলাদের জন্য প্রাকৃতিক ফিট প্রিমিয়াম ওজন বৃদ্ধিকারী 1000Mg ক্যাপসুল সাপ্লিমেন্ট
  • হুই প্রোটিন পাউডার + ক্রিয়েটাইন মনোহাইড্রেট, সিক্স স্টার 100% হুই প্রোটিন প্লাস

৭ দিনে মোটা হওয়ার উপায়

৭ দিনে কি আসলেই মোটা হওয়া যায়? আপনি যদি সত্যিই মোটা হতে চান তাহলে সময় নিয়ে, স্বাস্থ্যকর উপায়ে, ভিটামিনযুক্ত খাবার খেয়ে মোটা হওয়ার চেষ্টা করুন। মনে রাখবেনঃ অল্প সময়ের ফলাফল কখনই ভালো হয়না।

৭ দিনে মোটা হওয়ার ঔষধ

উপরে কিছু ভিটামিন ঔষধের নাম উল্লেখ করা হয়েছে সেগুলো ডাক্তারের পরামর্শে আপনি খেতে পারেন।  ৭  দিনে মোটা না হলেও এই ওষুধগুলো সেবনের মাধ্যমে আপনি শরীরের পরিবর্তন অবশ্যই লক্ষ্য করতে পারবেন।

মোটা হওয়ার সুবিধা অসুবিধা কি?

মোটা হওয়ার সুবিধা ও অসুবিধা টা কি সেটা পুরোপুরি ডিপেন্ড করে আপনার নিজের উপর। অনেকেই বাইরে থেকে দেখতে মনে হয় যে স্বাস্থ্য সুন্দর কিন্তু ভেতরে অনেক ধরনের রোগ থাকতে পারে। আপনি কি ধরনের খাবার খাচ্ছেন, আপনার শরীর সুস্থ কিনা, সুস্থতা অনুভব করছেন কিনা, আপনার লাইফ স্টাইল কেমন, সেটার উপর নির্ভর করে মোটা হওয়ার সুবিধা ও অসুবিধা। অতিরিক্ত মোটা হলে শরীরের বিভিন্ন ধরনের রোগের বাসা বাঁধে এবং যে কোন কাজ করতে গিয়ে অসুবিধার সম্মুখীন হতে হয়। তাই অতিরিক্ত মোটা এবং অতিরিক্ত চিকন কোনটাই ভালো নয়।

মোটা হওয়ার উপকারিতা কি

সবাই যদি ফিট এবং স্বাস্থ্যকর থাকার সুবিধা ও অসুবিধা গুলি সম্পর্কে অবগত হতো। তাহলে এত লোক এখনো অতিরিক্ত মোটা কিভাবে? বেশিরভাগ লোকই জানেন অতিরিক্ত ওজন স্বাস্থ্যের উপর মারাত্মক প্রভাব ফেলতে পারে কিন্তু দেখা যায় মোটা মানুষ সবচেয়ে সুখী, তাদের খাবার নিয়ে কোন চিন্তা নেই। তাদের খাবার উপভোগ করতে পারে ইচ্ছামত, এবং তাদের মধ্যে দুর্দান্ত আত্মবিশ্বাস দেখা যায়।

মোটা হওয়ার ক্ষতিকর দিকগুলো কি কি

আপনি জানলে অবাক হবেন, স্থূলতা একটি নীরব ঘাতক। তাই,স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন, পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহণ, অতিরিক্ত চর্বি জাতীয় খাবার না খাওয়া নিশ্চিত করা ভালো। মোটা হওয়ার ক্ষতিকর দিকগুলো – হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, শ্বাস নিতে কষ্ট হয়, হাঁটতে কষ্ট হয়, জীবনের গুণমান খারাপ হয়, বিষণ্ণতা এসে ভর করে।

পরিশেষে,

আশা করি, আর্টিকেলটি পড়ে পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ছাড়া মোটা হওয়ার ঔষধের নাম বাংলাদেশ, ভিটামিন ঔষধ, ৭ দিনে মোটা হওয়ার উপায়, এবং মোটা হওয়ার সুবিধা ও অসুবিধা কি, উপকারিতা কি, সে সম্পর্কে আপনার একটা ভাল ধারণা হয়েছে। আপনার ব্যক্তিগত মতামত জানাতে Comment করুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *