How to
Trending

ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো – ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক 2022

ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো? ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার সফটওয়্যার ২০২২। বিআরটিএ থেকে বাংলাদেশের মোটর ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়ম কিভাবে? আপনি যদি নতুন ড্রাইভার হয়ে থাকেন, অথবা অনেক আগে থেকেই গাড়ি চালাচ্ছেন কিন্তু ড্রাইভিং লাইসেন্স এর আবেদন করে থাকেন। তাহলে আপনার মনে সম্ভবত উক্ত রকমের নানাবিধ প্রশ্ন ঘোরপাক খাচ্ছে। তাই আমি এসকল প্রশ্নের ক্রমশ উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করেছি

ড্রাইভিং লাইসেন্স কি ও কেন

Summary Of Content

ড্রাইভিং লাইসেন্স থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ কেন? যানবাহনের এই যূগে, ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া আপনি যেকোন স্থানে গাড়ি চালাতে পারবেন না। এতে করে, আপনাকে আইনি বেকায়দায় পড়তে হতে পারে। তাই একজন ড্রাইভারের জন্য লাইসেন্স থাকাটা আবশ্যক। বিআরটিএ কর্তৃক একজন ড্রাইভারকে তিনটি ধাপের পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স দেওয়া হয়। যাহোক, এই পর্বের প্রবন্ধটি লেখা হয়েছে নতুন পুরাতন সকল গাড়ি চালকদের জন্য।

    ২০২২ সালে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার নিয়মাবলী এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো? এসকল প্রশ্নের উত্তরসহ এই পর্বের আলোচনা। তো, চলুন শুরু করা যাক…

    ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো? SMS পদ্ধতি

    ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো? উত্তরঃ বায়োমেট্রিক্স তথ্য সাবমিট করার পর, বিআরটিএ কর্তৃক যেই একিনলেজমেন্ট স্লিপ দেওয়া হয়, সেখান থেকে DL নাম্বারটি কপি করুন। তারপর ১) মেসেজ বক্সে DL রেফারেন্স নম্বর টাইপ করুন। ২) তারপর 6969 নাম্বারে পাঠিয়ে দিন। অতঃপর, ফিরতি মেসেজ মাধ্যমে আপনি চিপযুক্ত স্মার্ট ড্রাইভিং কার্ডটি প্রস্তুত হয়েছে কিনা, এবং এর বর্তমান অবস্থা কি সেটা জানতে ও বুঝতে পারবেন। যেমনঃ মেসেজ বক্সে Type: DL DM139587 এবং Send to 6969 নাম্বারে।

    • স্মার্ট ড্রাইভিং লাইসেন্স কার্ড এর জন্য- বায়োমেট্রিক্স মাধ্যমে ব্যক্তিগত তথ্য সাবমিট করার পর, বিআরটিএ কর্তৃক একটি এ্যাকিনলেজমেন্ট স্লিপ পাবেন। সেখানে DL রেফারেন্স নাম্বারটি দেখতে পাবেন।

    বি.দ্রঃ- রেফারেন্স নাম্বারে যদি কোন ড্যাশ (“-”) চিহ্ন থাকে, তাহলে সেটাকে রিমুভ করতে হবে। তবে, যদি স্ল্যাশ (“/”) চিহ্ন থাকে। তাহলে সেটাকে উল্লেখ করতে হবে।

    ড্রাইভিং লাইসেন্স কি?

    ড্রাইভিং লাইসেন্স কি? ড্রাইভিং লাইসেন্স হল একটি সরকারি আইনী অনুমোদনকৃত কার্ড মাত্র। আপনি ড্রাইভিং পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন এবং গাড়ি চালানোর যোগ্য, সেই বিষয়টি প্রমাণপত্র হিসেবে সরকারি পরিবহন মন্ত্রনালয়ের পরিচালিত সংস্থা কর্তৃক যেই কার্ড দেওয়া হয়। তাকেই ড্রাইভিং লাইসেন্স বলে। এধণের কার্ডগুলো প্লাস্টিকের হয়ে থাকে। বা এটাকে ক্রেডিট কার্ডের গঠনের সাথেও তুলনা করতে পারেন।

    ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য কি কি ডকুমেন্ট প্রয়োজন

    ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে হলে যেসব কাগজপত্র প্রয়োজন: আপনার বয়স নূন্যতম ১৮ বছর বা ততোর্ধ হতে হবে। এবং রেজিষ্ট্রেশন করার জন্য প্রয়োজন:

    লিরিক্স সম্ভার এবং সাহিত্য ওয়েবসাইট

    • ১) ন্যাশনাল আইডি কার্ডের ফটোকপি (রঙিন হলে ভাল)।
    • ২) মেডিক্যাল পরিক্ষার ফলাফল স্বরুপ ডাক্তারের সাক্ষর ও সত্বায়িত মেডিকেল সার্টিফিকেট ফটোকপি। (রেজিষ্টার ডাক্তার কর্তৃক)
    • ৩) ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য নির্ধার্তি আবেদনপত্র বা এপ্লিকেশন ফরম।
    • ৪) পূর্ব নির্ধারণকৃত ফি জমাদান করার প্রাপ্ত রশিদ পত্র।
    • ৫) পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি (১ কপি)।
    • ৬) স্ট্যাম্প সাইজের রঙিন কালারের ছবি ( ৩ কপি )।
    • ৭) নির্ধারিত ফি বাবদ টাকা।

    বি.দ্রঃ নির্ধারিত ফি বাবদ

    • ১ ক্যাটাগরির জন্য = ৩৪৫ টাকা (তিনশত পঁয়তাল্লিশ) মাত্র।
    • ২ ক্যাটাগরির জন্য = ৫১৮ টাকা (পাঁচশত আঠারো) মাত্র।

    ড্রাইভিং লাইসেন্স আবেদন ফর্ম

    আপনি দুইভাবে আবেদনপত্র পেতে পারেন। ১) অনলাইনে, ২) অফলাইনে।
    অনলাইনের মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স এর জন্য আবেদনপত্র সংগ্রহ করতে চাইলে; বাংলাদেশ সড়ক পরিবহনের ওয়েবসাইট: বিআরটিএ (www.brta.gov.bd) ভিসিট করুন। এরপর মেনুবার থেকে “ফরম” অপশনে ক্লিক করুন। এবং আপনার নির্দিষ্ট ফরমটিতে ক্লিক রে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ অনুসরণ করুন। অথবা, অফলাইনে সংগ্রহ করতে চাইলে – বিআটিএ’র অফিসে এসে সরাসরি কালেক্ট করতে পারেন।

    ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক ২০২২: ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো?

    আবেদন করার পর দুই থেকে তিনমাস পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হতে পারে। তারপর আপনাকে এসএমএসের মাধ্যমে পরিক্ষায় অংগ্রহণ সংক্রান্ত নোটিশ দেওয়া হবে। উক্ত পরিক্ষাটিতে তিনভাবে উত্তীর্ণ হতে হবে। ১) লিখিত পরীক্ষা, ২) মোখিক / ভাইভা পরিক্ষা, ৩) ফিল্ড টেস্ট বা প্রাকটিক্যালি গাড়ি চালিয়ে দেখাতে হবে। পরীক্ষা শেষ হলে, কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে। সে পর্যন্ত আপনি আবেদনের সময় যেই মোবাইলটি দিয়েছিলেন, সেই নাম্বারে নজর রাখুন।

    আরও পড়ুনঃ বিভিন্ন শব্দের পূর্ণরুপ

    Read More: জমির খতিয়ান, নকশা, দলিল কোথায় এবং কিভাবে পাবেন?

    Ami Ki Tomay Khub Birokto Korchi Lyrics আমি কি তোমায় খুব বিরক্ত করছি লিরিক্স

    • যদি পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পর , আপনার মোবাইলে রেজাল্টের এসএমএস আসে। তাহলে আপনাকে আও একটি ফরম পূরণ করতে হবে। অর্থাৎ স্মার্ডকার্ড হিসেবে লাইসেন্স কার্ড এর জন্য সার্কেল অফিসে আবেদন করতে হবে।

    ড্রাইভিং কার্ড বা ড্রাইভিং স্মার্ট কার্ড কিভাবে পাবো

    ড্রাইভিং স্মার্ট কার্ড, ড্রাইভিং কার্ড কিভাবে পাবো এজন্য আপনাকে কিছু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা দিতে হবেঃ

    • ১) প্রথমত নির্ধারিত ফরমে আবেদন করতে হবে। এবং
    • ২) রেজিষ্ট্রার্ড ডাক্তার কর্তৃক মেডিক্যাল সার্টিফিকেটপত্র।
    • ৩) জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি (রঙিন কালার হলে ভাল হয়)।
    • ৪) নির্ধারিত ফিঃ জমাদান।
    • ৫) পুলিশ ভেরিফিকেশনপত্র।
    • ৬) পাসপোর্ট সাইজের রঙিন ছবি (১ কপি)
    • বি.দ্রঃ ড্রাইভিং স্মার্ট কার্ড পাওয়ার জন্য- দুইটি বিভাগ রয়েছে।
    • পেশাদার ফিঃ ১,৬৭৯ টাকা ( একহাজার ছয়শত ঊনসত্তর ) মাত্র।
    • অপেশাদার ফিঃ ২,৫৪২ টাকা (দুইহাজার পাঁচশত বিয়াল্লিশ) মাত্র।

    ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন করার পদ্ধতি

    পেশাদার অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম - নবায়ন করার নিয়ম
    পেশাদার অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স করার নিয়ম – কিভাবে নবায়ন করব

    ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন করবো কিভাবে? পুনরায় নবায়ন করার জন্য প্রথমত বিভাগ নির্ধারণ করতে হবে। অর্থাৎ ১) পেশাদার, ২) অপেশাদার লাইসেন্স। বি.দ্রঃ পেশাদার লাইসেন্স পেতে হলে আপনার বয়স: নূন্যতম ২১ বছর হতে হবে। কিন্তু অপেশাদার লাইসেন্সের জন্য মিনিমাম ১৮ বছর হলেই চলবে।

    ছবি দিয়ে টিকটক ভিডিও বানানোর সেরা ৫ টি সফটওয়্যার

    • ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন করার প্রয়োজনীয়তাঃ পেশাদার লাইসেন্সের জন্য প্রতি ৫ বছর (পাঁচ বছর) পরপর, এবং অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য প্রতি ১০ বছর (১০ বৎসর) অন্তর অন্তর নবায়ন করতে হয়। আরেকটি কথাঃ সর্বপ্রথম ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো? সেটির জন্য’ও মোবাইলে মসেজ পাবেন আপনি। এবং যেই নাম্বার ও কাগজপত্র দিয়ে প্রথমে আবেনদ করেছিলেন, নবায়ন করার সময়’ও ঠিক একই কাগজপাতি প্রয়োজন পড়বে।
    পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন করার পদ্ধতি

    পেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন করার সহজ পদ্ধতিঃ লাইসেন্স নবায়ন করার জন্য আপনাকে পুনরায় একটি ব্যবহারিক পরিক্ষায় অংশগ্রহণ করা প্রয়োজন হবে। এবং ব্যবহারিক পরিক্ষায় পাশ করার পর, নির্ধারিত ফি পরিশোধ করতে হবে। অতপর সংশ্লিষ্ট কাগজপাতিসহ বিআরটি’র নির্ধারিত সার্কেল অফিসে আবেদন করতে হবে। কিছুদিন পর, স্মার্টকার্ড এভেইলেভেল হলে: আপনার মোবাইল নাম্বারে এসএমসের মাধ্যমে বার্তা পাবেন।

    পড়তে পারেনঃ গাড়ির প্রয়োজনীয় তেল – গাড়ির যত্নে ৬ টি টিপস

    You Can read: কেঁচো সার তৈরির পদ্ধতি। ফসলে ভার্মি কম্পোস্ট এর ব্যবহার

    • বি.দ্রঃ- আবেদন ফি বাবদ পূর্বের কার্ডের মেয়াদ উত্তীর্ণের দুই সপ্তাহের মধ্যে হলে- ১,৫৬৫ টাকা (একহাজার পাঁচশত পয়শট্টি ) জমা দিতে হবে।
    • এবং ১৫ দিন অতিক্রম হলে, প্রতিবছর বাবদ ২৩০/- টাকা (দুইশত ত্রিশ) হারে জরিমানাসহ পরিশোধ করতে হবে।
    অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন করার পদ্ধতি

    অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স নবায়ন করার সহজ পদ্ধতিঃ অপেশাদার ড্রাইভার হিসেবে লাইসেন্স নবায়ন করতে হলে, প্রথমত নির্ধারিত ফি বাবদ টাকা জমাদানের পর, প্রয়োজনীয় কাজগপাতিসহ বিআরটিএ’র নির্ধারিত সার্কেল অফিসে এপ্লাই (আবেদন) করা আবশ্যক। অতঃপর যাচাই বাছাইয়ের ভিত্তিকে বায়োমেট্রিক্স পদ্ধতিতে আপনাকে তথ্য দিতে হবে। তারপর কিছুদিন অপেক্ষা করুন, তাহলে আপনার মোবাইল মেসেজের মাধ্যমে অপেশাদার ড্রাইভিং স্মার্ট কার্ড পাওয়ার জন্য বার্তা পাবেন।

    ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো

    ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো - ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার সহজ উপায়
    ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো – ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার সহজ উপায়

    ধরে নিলামঃ আপনি ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য বা নবায়ন মারফত আবেদন করেছেন। কিন্তু প্রশ্ন হলো: ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো? উত্তরঃ মোবাইল এসএমএসের মাধ্যমেই জানতে পারবেন। এজন্য মাত্র দুইটি ধাপ ফলো করুনঃ ১) মেসেজ বক্সে DL রিফারেন্স নম্বর লিখুন। ২) এবার 6969 নাম্বারে সেন্ড করুন। এবং কিছুক্ষণ পর, ফিরতি মেসেজের মাধ্যমে আপনাকে চিপযুক্ত ড্রাইভিং স্মার্টকার্ডটি প্রস্তুত হয়েছে কিনা, সেটার বর্তমান অবস্থা জানতে পারবেন।

    উদাহরণস্বরুপঃ
    • ১) প্রথমে মেসেজ বক্সে যান
    • ২) এরপর Type করুন: DL DM206843
    • ৩) সবশেষে 6969 এই নাম্বারে মেসেজটি পাঠান।

    DL রেফারেন্স নাম্বার কোথায় পাবো

    DL রেফারেন্স বা ড্রাইভিং লাইসেন্স রেফারেন্স নাম্বার কোথায় পাবেন ? স্মার্ট ড্রাইভিং লাইসেন্স কার্ড এর জন্য- বায়োমেট্রিক্স মাধ্যমে ব্যক্তিগত তথ্য সাবমিট করার পর, বিআরটিএ কর্তৃক একটি এ্যাকিনলেজমেন্ট স্লিপ পাবেন। সেখানে DL রেফারেন্স নাম্বারটি দেখতে পাবেন।

    মাল্টিলোড এর লেটেস্ট কনটেন্ট পড়ুন এখান থেকে

    • বি.দ্রঃ- রেফারেন্স নাম্বারে যদি কোন ড্যাশ (“-”) চিহ্ন থাকে, তাহলে সেটাকে রিমুভ করতে হবে। তবে, যদি স্ল্যাশ (“/”) চিহ্ন থাকে। তাহলে সেটাকে উল্লেখ করতে হবে।

    ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার সফটওয়্যার

    মোবাইলের মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার উপায় - কিভাবে করব
    মোবাইলের মাধ্যমে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার উপায়

    ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো? আপনার সুবিধার কথা চিন্তা করে, অনলাইনে ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার সফটওয়্যার উল্লেখ করছি। সেটার নামঃ DL Checker. এটি PlayStore য়ে সার্চ করলেই পেয়ে যাবেন। প্লেস্টোর থেকে অ্যাপসটি ইনস্টল করার পর, Open করুন। এবং ১) আপনার জন্ম তারিখ, ২) DL রেফারেন্স নাম্বার দিয়ে Submit করুন। একটু পরেই – স্মার্ট ড্রাইভিং কার্ডটির ছবি দেখতে পাবেন। কার্ডটিতে ব্যক্তির নামসহ জন্ম তারিখ, কার্ডের লাইসেন্স মেয়াদসীমাসহ যাবতীয় তথ্য দেখতে পাবেন।

    পরিশেষে,
    ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক করার উপায় এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবো? এই প্রশ্নের উত্তর সমাধান দেওয়ার পর বলতে চাই: নিরাপদ সড়ক ও সুস্থ পরিবহন যাত্রা বজায় রাখতে ট্রাফিক আইন মেনে চলুন। আপনার আপডেট ড্রাইভিং লাইসেন্সটি নিয়মিত গাড়ি চালানোর সময় সাথেই রাখুন। ধন্যবাদ।।

    3 Comments

    1. আমার ড্রাইভিং লাইসেঞ্চ এর কাগজ পত্র সাভার বি আর টি এ অফিসের কিন্তু ফিঙ্গার প্রিন্ট দিয়েছি মিরপুর তাহলে স্মার্ট কার্ড কোথায় পাবো সাভার না মিরপুর?

      1. আপনি সাভার বি আর টি এ থেকে ড্রাইভিং লাইসেন্স স্মার্ট কার্ড সংগ্রহ করতে পারবেন। তবে, মিরপুর থেকে কার্ড নিতে চাইলে – তাদের স্থানীয় অফিসে যোগাযোগ করতে হবে। ধন্যবাদ

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    Back to top button