কিভাবে লম্বা হওয়া যায়? নারী পুরষ সকলের জন্য কার্যকরী সেরা ১০ টিপস

অদ্য আলোচনার বিষয় হলো: কিভাবে লম্বা হওয়া যায়? নারী-পুরুষ সকলের জন্য সহজ কিছু হেলথ টিপস নিয়ে লেখা কথা বলবো। আপনি যদি নিচের উপায় গুলো ব্যবহার করতে পারেন , তাহলে খুব দ্রুত লম্বা হওয়ার উপায় আয়ত্ত করতে পারবেন বলে আশা করি।

কিভাবে দ্রুত লম্বা হওয়া যায়

প্রথমেই বলবো, রাতারাতি অর্থাৎ খুব দ্রুত লম্বা হওয়ার জন্য বিশেষ কোন উপায় নেই। কারণ লম্বা হওয়াটি বেশিরভাগই জেনেটিক্স ব্যপারে সম্পর্কিত। আপনার উচ্চতা কতটা বৃদ্ধি পাবে: তা নির্ভর করে – আপনার পিতৃ-মাতৃ ডিএনএ’র উপর। অর্থাৎ মানুষের উচ্চতার 60% এবং 80% এর মধ্যে আপনার পিতা-মাতার ডিএনএ’র মাধ্যমে নির্ধারিত হয়।

আর বাকি প্রায় 20% থেকে 40% উচ্চতা বৃদ্ধির বিষয়টি নিচের প্রেক্ষিত সামাজিক ও পরিবেশের উপর প্রভাবিত হয়ে নির্ভর করে।

অর্থা; আপনার উচ্চতা বৃদ্ধির ২০% – ৪০% নির্ভর করে: আপনি কতটা সুষম খাদ্য গ্রহণ করছেন। স্বাস্থ্য সচেতনতা কেমন, নিয়মিত কোন ধরণের ব্যায়াম করে থাকেন এবং আপনি পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমান কিনা। সাধারণত এই বিষয়গুলো যদি পরিমাণমতো মানতে পারেন, তাহলে আপনি অন্যদের তুলনায় প্রায় অধিকতর লম্বা হতে পারবেন।

মনে রাখবেনঃ আপনার হাড়ের বৃদ্ধির পরিমাণ, অর্থাৎ গ্রোথ হরমোন প্লেটগুলো সক্রিয় থাকা অব্দি উচ্চতা বৃদ্ধির সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু যদি গ্রোথ হরমোন বন্ধ হয়ে যায়, তারপর আর আপনি লম্বা হতে পারবেন না। এবং বয়স বাড়ার সাথে সাথে লম্বা হওয়ার সম্ভাবনাটুকু কমতে থাকে। ছেলেরা সাধারণত ২৪ বছর অব্দি লম্বা হতে থাকে। আর মেয়েরা সাধারণ ২১ বছর অব্দি লম্বা হতে পারে।

সুষম খাদ্য, স্বাস্থ্য সচেতন ব্যায়াম এবং পরিমাণমতো ঘুম আপনাকে খুব দ্রুত লম্বা হতে সাহায্য করবে।

যদিও অধিকাংশক্ষেত্রে, গ্রোথ হরমোন সচল ও হাড়ের বৃদ্ধির প্লেটগুলি ২০ বছর বয়সের পর থেকে আস্তে আস্তে ক্রমশ বন্ধ হয়ে যায় এবং এর পরে, আপনি স্বাভাবিকভাবে আর লম্বা হতে পারবেন না। তবে, মহিলাদের উচ্চতা বৃদ্ধির সম্ভাবনা সাধারণত 18 বছর বয়সের পর কমে যায়। যাহোক, আপনি যদি জানতে চান: কিভাবে তাড়াতাড়ি লম্বা হওয়া যায়? তাহলে নিচের নির্দেশনাগুলো মনোযোগ দিয়ে পড়ুন!

কিভাবে লম্বা হওয়া যায়

যদিও বিজ্ঞানীদের ধারণা মতে, উচ্চতা বৃদ্ধির বিষয়টি অধিকাংশ ক্ষেত্রেই জেনেটিক বা বংশগত ব্যপার। তবে, অনেক বিশেষজ্ঞের ধারণা মতে- আপনি নিচের পদ্ধতিগুলো নিয়মিত মেনে চললে, আপনি প্রাকৃতি ভাবে দ্রুত লম্বা হতে পারবেন। এবং সুঠামদেহি উচ্চতাবিশিষ্ট শরীরের অধিকারি হতে পারবেন।

শরীরের উচ্চতা বাড়ানোর কিছু উপায় নিচে বর্ণনা করা হলো

আত্নবিশ্বাসী হয়ে উঠুন

৬ ফুট লম্বা হওয়ার উপায় :- হয়তবা উচ্চতা কম হওয়ার কারণেই , আপনি আমার ব্লগটি পড়ছেন। আপনার ভিতরে একরমের লম্বাহীনতার জন্য মানসিক হীন্যতা কাজ করে, মন খারাপ হয়ে যায় মাঝে মাঝে। সেজন্যই প্রথমে নিজের ভিতের আত্নবিশ্বাস রাখুন এবং হৃদয়কে উচ্ছসিত করুন । চিন্তা করুনঃ আপনার চেয়েও খাটো মানুষ, দুনিয়াতে অসংখ্যজন রয়েছে। সেজন্য মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করে, সবর্দা হাসি-খুশি এবং প্রফুল্ল থাকার চেষ্টা করুন।

সুতরাং নিজের প্রতি আত্নবিশ্বাস রাখুন। কারণ, একমাত্র আত্নবিশ্বাসীরাই যেকোন কাজে সফল হতে পারে। কেননা, সফল হওয়ার জন্য প্রয়োজন- শরীর এবং মনের ইতিবাচক ভাব-দৃষ্টিভঙ্গি। যেটা আত্নবিশ্বাসীদের মাঝে থাকেই। এবং আল্লাহর কাছে প্রতিনিয়ত লম্বা হওয়ার জন্য দোয়া করতে থাকুন। ফল কিছু না কিছু তো পরিমাণ লম্বা হতে পারবেন ই।

পড়তে পারেনঃ আমের মুকুল ঝরে পড়ার কারণ ও প্রতিকার কি?

Read More: ৪২১ টি ইংরেজি কনফিউজিং শব্দ – GK of English Vocabulary

আল্লাহ তায়ালা এমন একজন অদ্বিতীয় সৃষ্টিকর্তা, যিনি চাইলে – আপনার বয়স ৫০ বছর পার হবার পরও, আপনার উচ্চতা বৃদ্ধি করতে পারেন। তিনিই মহান আল্লাহ, যিনি আমাদেরকে সুন্দরতম জীবণ দান করেছেন এবং মহান রাহমানুর রাহিম চাইলেই- সব’ই সম্ভব!

নিয়মিত রোদে হাঁটুন

শরীর বৃদ্ধি পাওয়ার বিষয়টি সুঠাম হাড় গঠনের উপর নির্ভর করে। সুতরাং দ্রুত লম্বা হওয়ার জন্য প্রতিদিন সকালে সূর্য উঠার পর কিছুক্ষণ রোদ উপভোগ করুন। নিয়মিত গড়ে ৩০ মিনিট করে রোদে হাঁটাহাটি করুন। কারণ, হাড় সুঠাম ও বিকশিত করার জন্য শরীরের জন্য চাই পর্যাপ্ত ভিটামিন-ডি। যদিও ডাক্তারি উপায়ে ভিটামিনের প্রচুর মেডিসিন পাওয়া যায়, কিন্ত রোদে হাটলে আপনি প্রচুর প্রাকৃতিক উপায়ে ভিটামিন ডি পাবেন।

তবে, সব বয়সী মানুষের জন্য বা সব রকমের মানুষের জন্য যেকোন সময়ে রোদে হাঁটা ক্ষতিকর হতে পারে। যেমন: গায়ের চামড়ার রঙ ভেদে যেকোন সময়ে রোদে হাঁটা-চলা করা অনেক সময় ত্বকের ক্ষতি করতে পারে। বা স্কিন কালো হয়ে যেতে পারে।
আপনার শরীরের ত্বক ফর্সা হলে, নিয়মিত চেষ্টা করবেন যেনঃ ত্রিশ মিনিট (৩০) এর বেশি রোদে হাটাহাটি করবেন না। কারণ ফর্সা ত্বরেক লোকদের চামড়া সরু হয়ে থাকে। তবে, কালো রঙের চামড়া লোকেরা ৬০ মিনিটের মতো রোদ পোহাতে পারেন, এতে করে কোন ধরণের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা নেই।

সুষম ও পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহণ দ্রুত উচ্চতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে

কি খেলে লম্বা হওয়া যায়?
বি.দ্র: খাদ্যের ছয়টি উপাদানকে একত্রে খাদ্যদল বা সুষম খাদ্য বলে। খাদ্যদলের উপাদান ছয়টি, যথাঃ ১) ভিটামিন, ২) শর্করা, ৩) স্নেহ বা তৈলাক্ত চর্বিযুক্ত খাদ্য, ৪) খনিজ লবণ, ৫) আমিষ , ৬) পানি। খাদ্যদলের এই ছয়টি খাদ্যই যদি গড় অনুপাতে উপস্থিত থাকে – তাকেই আমরা সুষম খাদ্য বা পুষ্টিকর খাদ্য বলতে পারি।

২ ইঞ্চি লম্বা হওয়ার উপায়ঃ শরীরের হাড় বৃদ্ধির জন্য বা উচ্চতা বাড়ানোর গ্রোথ হরমোন সচল রাখার জন্য – নিয়মিত আপনাকে পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। সাধারণত ভাত, আলু হলো: প্রচুর শর্করা’র উপাদান খাদ্য। এতে করে আপনার শরীরের শক্তি বৃদ্ধি পাবে। এছাড়াও খেতে পারেন: বাদাম, দুধ, চর্বিহীন মাংস এবং প্রচুর শাক-সবজি। এবং মাঝে মাঝে ফল-ফলাদি খাবেন। তবে, মৌসুমী ফল শরীরের জন্য বেশি কার্যকর বলে আখ্যা দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও প্রোটিন এবং কার্বোহইড্রেড সমৃদ্ধ খাদ্য খেলে বেশি উপকৃত হবেন। যার ফলে দ্রুত লম্বা হতে পারবেন।

শরীরচর্চার জন্য সঠিক নিয়মে ব্যায়াম করুন

কিভাবে ব্যায়াম করলে লম্বা হওয়া যায়
কিভাবে ব্যায়াম করলে লম্বা হওয়া যায়

শরীরের প্রাত্যহিক সুস্থতার জন্য যেমন শরীরচর্চা বা ইয়োগা প্রয়োজন, তেমনি লম্বা হওয়ার উপায় হিসেবে শরীরচর্চার ব্যায়ামের কোন তুলনা নেই। সুতরাং নিয়মিত শরীর চর্চা করতে থাকুন, এবং ৫-৬ (পাঁচ/ছয়) মাস নিয়মিত ব্যায়ামগুলো বজায় রাখুন। তাহলে আপনি সহজেই লম্বা হতে পারবেন।

কিভাবে ব্যায়াম করলে লম্বা হওয়া যায়

৭ দিনে লম্বা হওয়ার উপায়:- আসলে, আপনি এতটা আশা করবেন না, প্লিজ! অন্তত পাঁচ থেকে ছয় মাস উচ্চতা বাড়ানোর ব্যায়ামগুলো করুন। সুষম খাদ্য খান, পরিমাণমতো ঘুমান। তাহলে আশা করি – আপনি লম্বা হতে পারবেন। ইনশাআল্লাহ!!

You Can Read: ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নামের তালিকা সমূহ

আরও পড়ুনঃ ড্রাইভিং লাইসেন্স চেক: ড্রাইভিং লাইসেন্স হয়েছে কিনা কিভাবে জানবেন?

Fix Deletion failed. There has been a critical error on this website

কিভাবে ব্যায়াম করলে লম্বা হওয়া যায়:- আপনি যদি প্রশ্ন করেন >> দ্রুত লম্বা হওয়ার ব্যায়াম কি? আমি বলবো: উচ্চতা বাড়ানোর জন্য অন্যতম সেরা পদ্ধতি হলো “নিয়মিত সাঁতার কাটা”। সাঁতার কাটা হলো লম্বা হওয়ার বৈজ্ঞানিক উপায়। কারণ সাঁতাল কাটলে আপনার দেহ ফ্লেক্সিবল ও প্রশান্তিপূর্ণ হয়ে উঠে এবং দেহের অভ্যন্তরীণ ও বহিরাগত পেশি গঠনের জন্য বেশ কার্যকর।

মোটা ও লম্বা হওয়ার জন্য প্রয়োজন পর্যাপ্ত ঘুম

কিভাবে লম্বা ও মোটা হওয়া যায়:- আপনি কি জানেন? প্রতিদিন পর্যাপ্ত ঘুম হলে – শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধি ও স্বাস্থ্য মোটা হয়। সুতরাং লম্বা ও মোটা হতে চাইলে প্রতিরাতে নিয়মিত আট ঘন্টা করে পর্যাপ্ত ঘুমাবেন। এবং আপনার ঘুমানোর জন্য কোলাহলমুক্ত নিরিবিলি ও অন্ধকার পরিবেশ নিশ্চিত করুন। এতে ফলাফল ভালো পাবেন।

দেহভঙ্গি সুঠাম রাখুন

আপনি যদি সোজা হয়ে বসেন, এবং হাঁটার সময় সোজা হয়ে হাটেন। তাহলে দূর হতে আপনাকে কিছুটা লম্বা দেখা যাবে। সুতরাং কুঁজো হওয়া থেকে বিরত থাকুন, চেষ্টা করবেন মেরুদন্ড সোজা করে বসতে এবং নিয়মিত মেরুদন্ড খাড়া করে হাটুন। অনেকটা বলতে গেলে: বুক ফুলিয়ে হাটার মত…।

বদ অভ্যাস ত্যাগ করুন

উচ্চতা বৃদ্ধির জন্য অধিক ধূমপান, মদ্য পান, নেশাদ্রব্য গ্রহণ এবং মাদক সেবন থেকে বিরত থাকুন। সেভেনআপ, কোকাকোলাসহ বিভিন্ন পানীয়দব্য অতিমাত্রায় পান পরিহার করতঃ এবং অতিতৈলাক্ত খাবার খাওয়া থেকে যথাসম্ভব বিরত থাকলে- শরীরের উচ্চতা স্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ার হার বেড়ে যায়।

কিভাবে লম্বা হওয়া যায় নারী পুরষ সকলের জন্য কার্যকরী সেরা ১০ টিপস
কিভাবে লম্বা হওয়া যায় নারী পুরষ সকলের জন্য কার্যকরী সেরা ১০ টিপস

কমপ্লেন খেলে কি লম্বা হওয়া যায়

অনেকেই ভেবে থাকেন যে, কমপ্লেন খেলে কি লম্বা হওয়া যায়? বিশেষজ্ঞদের মতামত অনুসারে- কমপ্লেন গ্রোথের সক্রিয়তার জন্য খুবই কার্যকর। তবে, শুধুমাত্র কমপ্লেন খাওয়ার ফলেই আপনি লম্বা হতে পারবেন না। কারণ, উচ্চতা বৃদ্ধি পাওয়া টা জিনগত বা বংশ পরম্পরার বিষয়। তবে কমপ্লেন জাতীয় খাবারসমূহে লম্বা হওয়ার মারফত হাড় গঠনের গ্রোথ হরমোন নিঃসরণের জন্য পর্যাপ্ত উপাদান রয়েছে। সুতরাং কমপ্লেন খেলে হয়তবা আপনি কিছুটা অব্দি লম্বা হতে পারবেন। তবে: লম্বা যে হবেই, এরকমটা নিশ্চিন্ত বলা মুশকিল।

হরলিক্স খেলে কি লম্বা হওয়া যায়

অনেকেই জানতে চান যে: হরলিকস অথবা কমপ্লেন খেলে কি দ্রুত উচ্চতা বাড়ানো যায় কিনা। অর্থাৎ এগুলোর ফলে কি লম্বা হওয়া যাবে কিনা? তাদেরকে উদ্দেশ্য করে বলছি।

প্রথমত, হরলিকস এবং কমপ্ল্যান এর কোন দোষগুণ চর্চা করতে চাচ্ছি না। বরং সত্যিটা বলছি: লম্বা হওয়ার উক্তিটি , ওনারা মার্কেটিং কৌশল মারফত ব্যবহার করে সাধারণত। এটাও একধরণের বিজ্ঞাপন পরিকল্পনা। কোম্পানীর প্রোডাক্ট সেল বাড়ানোর জন্য – কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনেক ধরণেরই কৌশল অবলম্বন করে থাকে। তবে এটা মাথায় রাখবেন যে- স্বাস্থ্যকে সুস্থ ও প্রফুল্ল রাখতে হলে প্রয়োজন উচ্ছসিত মন মানসিকতা। আর এই বিষয়টাকে পুজি করেই – হরলিকস বা কমপ্ল্যাণ জাতীয় প্রতিষ্ঠানগুলো “আত্নবিশ্বাসী, প্রফুল্লতা” টাইপের স্লোগেন মার্কেটিং করে।

সবশেষে,
কিভাবে লম্বা হওয়া যায়? এই প্রশ্নের উত্তরে আমি সারাংশ বলতে চাই যে: স্বাস্থ্য ভাল রাখতে হলে এবং শরীরের উচ্চতা বৃদ্ধি ও সুঠাম দেহ গঠন করতে হলে পুষ্টিকর খাদ্য আর সুস্থ্য জীবন যাপনের কোন বিকল্প নেই।

1 thought on “কিভাবে লম্বা হওয়া যায়? নারী পুরষ সকলের জন্য কার্যকরী সেরা ১০ টিপস”

  1. ওহ, এটি একটি অবিশ্বাস্যভাবে চমৎকার পোস্ট ছিল. একটি শীর্ষস্থানীয় নিবন্ধ তৈরি করার জন্য সময় এবং প্রকৃত প্রচেষ্টা নেওয়া… তবে আমি কী বলতে পারি…

    যাহোক এই অধম আপনাদের জন্য বাংলা গানের লিরিক্স নিয়ে লিখেছেন। সেখানে ছেলেদের দ্রুত লম্বা হওয়ার টিপস”ও পাবেন। ধন্যবাদ।।

    Reply

Leave a Comment